বিনোদন, সেলিব্রিটি বার্তা

বলিউডের শাহেনশাহ ও সহস্রাব্দের সেরা তারকা “অমিতাভ বচ্চনের” জীবনী

৭০ দশকের সবচেয়ে রাগী যুবক” হিসেবে সর্বাধিক আলোচিত ছিলেন বলিউডের শাহেনশাহ ও সহস্রাব্দের সেরা তারকা অমিতাভ বচ্চন। তার অ্যাকশন দক্ষতা এবং অভিনয়ের নৈপূর্নিতার জন্য তাকে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে সম্মাননা প্রদান করা হয়। তার প্রভাবশীলতার জন্য বলিউডে অমিতাভ ‘বিগ বি’ বা বড় বচ্চন নামেও পরিচিত।

Image result for amitabh bachchan

বলিউডের এই “অ্যাংরি ম্যান ” বিগ বি ,তার কর্ম জীবনে তার পাঁচ দশকের অধিক সময়ের কর্মজীবনে ১৯০টির অধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। ১৯৭০ ও ১৯৮০-এর দশকে ভারতীয় চলচ্চিত্রে তার একচ্ছত্র আধিপত্যের জন্য ফরাসি চলচ্চিত্র সমালোচক ও পরিচালক ফ্রঁসোয়া ত্রুফো তাকে “একক-ব্যক্তি চলচ্চিত্র শিল্প” বলে অভিহিত করেন। তিনি তার অনুশাসনের ক্ষেত্রে যতোটা কঠিন তার সাথে ততোটাই কাজের প্রতি নিষ্ঠাবান। তিনি তার কর্ম জীবনে অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন; তন্মধ্যে রয়েছে ৪টি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং ১৫টি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক পুরস্কার। ফিল্মফেয়ারে অভিনয়ের জন্য প্রদত্ত পুরস্কারের বিভাগে তিনি সর্বাধিক মনোনয়ন পাওয়ার রেকর্ড করেছেন। কর্মজীবনের প্রথম থেকেই গম্ভীর ব্যারিটোন কন্ঠস্বরের জন্য প্রশংসিত বচ্চন, বাওয়ার্চি ছবির কিছু অংশে ভাষ্যকারের কাজ করেছিলেন।

Image result for amitabh bachchan

১৯৬৯ সালে বলিউডের শাহেনশাহর চলচ্চিত্র জগতে আত্মপ্রকাশ করেন সাত হিন্দুস্তানি নামক একটি চলচ্চিত্রের মাধ্যমে যেখানে সাতটি প্রধান চরিত্রের একটিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছিলেন খোয়াজা আহমেদ আব্বাস। চলচ্চিত্রটি যদিও ছবিটি বাণিজ্যিক সাফল্য পায়নি, তবুও বচ্চন এই ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে শ্রেষ্ঠ নতুন অভিনেতা হিসেবে তার প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। কিন্তু ১৯৭১ সালে আনন্দ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিপ্রকাশ ঘটে যা বাণিজ্যিক সাফল্যর সঙ্গে সঙ্গে চলচ্চিত্র সমালোচকদের প্রশংসাও আদায় করেছিল। এই ছবিতে, জীবনের প্রতি বীতশ্রদ্ধ এক ডাক্তারের ভূমিকায় অভিনয় করে বচ্চন ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ সহ অভিনেতার পুরস্কার পান। তার জীবনের সর্বাধিক সার্থক এবং ভারতের সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাণিজ্যিকভাবে সফল চলচ্চিত্র হচ্ছে “শোলে” মুদ্রাস্ফীতি বিবেচনা করেও এই ছবির রোজগার হয় প্রায় ২,৩৬,৪৫,০০,০০০ রুপি যা ৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের উর্ধে ছড়ায়। এই চলচ্চিত্রে তার সাথে আরো অনেক সুনামধন্য অভিনেতা ,অভিনেত্রী অভিনয় করেছিলেন । যেমন : ছবিতে বচ্চন জয়দেবের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন ছবির জগতের অনেক নামজাদা তারকারা, যেমন ধর্মেন্দ্র, হেমা মালিনী, সঞ্জীব কুমার, জয়া ভাদুড়ি এবং আমজাদ খান। ১৯৭৬ থেকে ১৯৮৪ পর্যন্ত তিনি অজস্র ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার এবং মনোয়ন পেয়েছিলেন।

Related image

১১ অক্টোবর ১৯৪২ সালে উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদের এক হিন্দু-শিখ পরিবারে অমিতাভ বচ্চনের জন্ম। তার পিতা হরিবংশ রায় বচ্চন একজন নামকরা হিন্দি কবি ছিলেন। তার মা তেজি বচ্চন ফৈসলাবাদের এক শিখ-পঞ্জাবী। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের অবিস্মরণীয় শব্দযূথ ইনকিলাব জিন্দাবাদের অণুপ্রেরণায় বচ্চনের প্রথম নামকরণ হয়েছিল ইনকিলাব। পরে তার নাম বদলে রাখা হয় অমিতাভ অর্থাৎ “যে আলো নির্বাপিত হয় না।” ভাই বোনের মধ্যে অমিতাভ বচ্চন পরিবারের বড় ছেলে। ১৯৭৩ সালে তিনি অভিনেত্রী ও প্রিয়তমা জয়া ভাদুড়িকে বিয়ে করেন। তাদের দুটি সন্তান, শ্বেতা নন্দা এবং অভিষেক বচ্চন। তিনি তার ছেলের সাথে প্রাক্তন ভারতীয় বিশ্ব সুন্দরী ঐশ্বর্যা রাই সাথে বিয়ে দেন।

Related image

২০০০ সালে বচ্চনকে ব্রিটিশ টেলিভিশন গেম শো হু ওয়ান্টস টু বি আ মিলিয়নেয়ার?-এর ভারতীয় সংস্করণের সঞ্চালক হিসেবে দেখা গিয়েছিল। যার নতুন নাম হয়েছিল “কৌন বনেগা ক্রোড়পতি “। অন্যান্য দেশের মতোই এই অনুষ্ঠানটি অনেক সাফল্য অর্জন করে।ছোট পর্দায় তার জনপ্রিয়তা ছবির জগতে তার প্রত্যাবর্তন অনেক সহজ করে দিয়েছিল। ২০০৯-এর অস্কারজয়ী ছবি ‘স্লামডগ মিলিয়নেয়ার’ এর দেখানো গেম শো হু ওয়ান্টস টু বি আ মিলিয়নেয়ার? প্রতিযোগিতায় প্রথম প্রশ্ন “জঞ্জীর ছবির তারকা কে ছিলেন?” -এর সঠিক উত্তর ছিল, “অমিতাভ বচ্চন”। অভিতাভ বচ্চন বিগ বস ৩ নামের একটি রিয়েলিটি শো এর সঞ্চলক হিসেবেও দেখা যায়। ২০২০ সালে তার “ব্রহ্মাস্ত্র” চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাবে ,সেখানে তার সাথে আলিয়া ভাট,রণবীর কাপুর এবং আরো অনেকে অভিনয় করতে দেখা যাবে। ২০১৯ সালে সর্ব প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্রে ক্ষেত্রে এই চলচ্চিত্রটির জন্যে নিজেসহ লগো উদ্বোধন করা হয়। চলচ্চিত্রটি মুক্তির আগেই অনেক ইতিবাচক আলোচনা অর্জন করে। দর্শক উৎসাহের সাথে এই চলচ্চিত্রটির জন্যে অপেক্ষা করছেন।

Related image

 

তারকালয়/৩০/১১/১৯ রিয়া

Previous ArticleNext Article