সাজগোজ

ত্বকের যত্নে কলার নানান উপকারিতা

কলা সুস্বাদু ফলের মধ্যে একটি ছোট বড় সকলেই এই ফলটি খুব পছন্দ করে থাকেন। কলা শক্তির মহান উৎস। একটি কলা আপনাকে অনেক ঘন্টা অবধি কর্মশক্তির যোগান দিবে। যারা দৈনন্দিন কাজে অনেক তাড়া থাকে সকালের নাস্তা করতে পারেনা তারা চাইলে একটি কলা খেয়ে নিতে পারেন এটি তাদের যথেষ্ট শক্তির যোগান দিবে। যদিও সকালের খাবার বাদ দেয়া ঠিক না। কলা সঠিকভাবে সংরক্ষণ করে রাখলে সহজে নষ্ট হয় না।
কলা স্বাস্থ্যকর খাদ্যের সাথে সাথে এটি ত্বকের ক্ষেত্রেও অনেক উপকার আসে। চুল ও ত্বকের যত্নে কলার উপকারিতার শেষ নেই।
কলার মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, সি, ই এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, পটাশিয়াম, আয়রন ও এনিমিয়া যা রক্তে হিমোগ্লোবিন বাড়ায় ও রক্তশূন্যতা কমায়।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায় : অর্ধেকটা কলা ভালো করে চটকে নিন তাতে ১ চা চামচ মধু ও ১ টেবিল চামচ কমলালেবুর রস নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন মুখে ও ঘাড়ে মাস্কটি লাগান। ১৫-২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তাৎক্ষনিক ত্বকে পরিবর্তন আসবে।

কালো দাগ কমাতে : একটি পাকা কলা , ১ টেবিল চামচ মধু ও ১ টেবিল চামচ লেবুর রস নিয়ে সবগুলো উপকরণ একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে প্যাকটি তৈরি করুন। এরপর প্যাকটি ব্যবহার করুন। ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের কালো দাগ কমিয়ে ত্বকে আনবে উজ্জ্বলতা।

ব্রন দূর করে : একটি পাকা কলা চটকে তাতে বেকিং সোডা ও হলুদ গুড়ো মিশিয়ে নিন। চাইলে একটু পানি মেশাতে পারেন এতে ঘনত্ব ভাব কমিয়ে আনবে। প্যাকটি ত্বকে ব্যবহার করুন। ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি ব্রন প্রতিরোধ করে। ব্রন হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয়।

বলি রেখা দূর করে : পাকা কলা অর্ধেকটা পেস্ট করে এর মধ্যে টক দই এবং কয়েক ফোটা লেবুর রস একসঙ্গে সবগুলি উপকরণ মিশিয়ে নিন। প্যাকটি ভালো ভাবে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

তেল নিয়ন্ত্রণ করে : কলা, মধু ও লেবুর রসের তৈরি প্যাকটি অত্যন্ত কার্যকরী। প্যাকটি প্রতিদিন সৌন্দর্য চর্চায় রাখা উচিত। এটি ত্বকের শুষ্কতা বজায় রেখে তৈলাক্ততা দূর করে।

প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার : কলা আপনার ত্বকের জন্য দারুণ প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। তাই প্রতিদিন গোসলের আগে শুধু পাকা কলা চটকে মুখে ২০-২৫ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন। কলা ত্বককে নরম ও উজ্জ্বল করে। ত্বকের ড্রাইনেস কমিয়ে ময়শ্চারাইজ করে।

অ্যাকনে ও ব্রনের জন্য : কলার খোসা ব্রনের মধ্যে জন্মে থাকা ব্যাকটেরিয়া গুলোকে ধ্বংস করে ও জ্বালা কমতে সাহায্য করে। ব্রন ও অ্যাকনের উপর কলার খোসার ভিতরের অংশটি ঘষুন খুব ভালো উপকার পাবেন।

তারকালয়/২০ আগস্ট,২০১৮/রূপা

Previous ArticleNext Article