সেলিব্রিটি বার্তা

জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির জীবনী

মাহিয়া মাহী বাংলাদেশের চলচিত্রের বর্তমান সময়ের অন্যতম আর্কষনীয় সুন্দরী জনপ্রিয় অভিনেত্রী । তিনি ২০১২ সালে রুপালী পর্দায় পা রাখেন “ভালবাসার রং” চলচিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে । মাহি তার অভিনয় দক্ষতা দিয়ে খুব অল্প সময়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন এবং নিজেকে একজন ১ম সারির অভিনেত্রী হিসাবে প্রতিষ্টিত করেন । বর্তমানে মাহিয়া মাহী শুধু বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের একজন অন্যতম ব্যস্ত অভিনেত্রী নয় বরং তিনি নিয়মিত কাজকরছেন ওপার বাংলার চলচিত্রেও ।

মাহিয়া মাহি ১৯৯৩ সালের ২৭ অক্টোবর রাজশাহী, নাচোল উপজেলা তে জন্মগ্রহণ করেন। ‘মাহিয়া মাহির’ পৈত্রিক নিবাস/আদি ভিটা চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলায় এবং সেখানেই তাঁর বাপ-দাদাসহ সকল পূর্বপুরুষের স্থায়ী বসবাস। তাঁর পিতার নাম আবু বকর এবং মাতার নাম দিলারা ইয়াসমিন। সিনেমা জগতের নাম ‘মাহিয়া মাহি’ হলেও তাঁর পারিবারিক নাম ‘শারমিন আকতার নিপা’। শৈশব-বাল্যজীবনের বেশির ভাগ কেটেছে নাচোল, মুন্ডুমালা, রাজশাহী এবং ঢাকাতে। ঢাকা উত্তরা হাই স্কুলে প্রাথমিক-মাধ্যমিক এবং ২০১২ সালে তিনি ঢাকা সিটি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেন।ছাত্রী হিসাবে খুবই মেধাবী একজন ছিলেন। মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক দুটোতেই তার রেজাল্ট ছিল গোল্ডেন এ প্লাস। তিনি বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করেছেন। বর্তমানে তিনি শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি থেকে ফ্যাশন ডিজাইনিং এর উপর পড়াশুনা করছেন।

২০১২ সালে জাজ মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে অভিষেক ঘটে, সে বছর তার একমাত্র সিনেমা ভালোবাসার রঙ মুক্তি পায়।খুব কম বয়সে তিনি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসাবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করেন। ২০১৩ সালে মাহির ৪ টি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়। অন্যরকম ভালবাসা,পোড়ামন, ভালবাসা আজকাল এবং তবুও ভালবাসি। ২০১৩ সালে মাহিয়া মাহীর পর পর তিনটি ছবি বাক্স অফিস ব্লকবাস্টার হয়। এবং সে বছরই তিনি নাম্বার ওয়ান অভিনেত্রী হিসাবে ভূষিত হন। ২০১৪ সালে ছয়টি সিনেমায় অভিনয় করেন মাহিয়া মাহী। অগ্নি,কি দারুন দেখতে,দবির সাহেবের সংসার,হানিমুন অনেক সাধের ময়না এবং দেশা- দা লিডার।

এই ছয়টি ছবিতে ছিল তার ভিন্ন ভিন্ন ছয়টি চরিত্র। যেমন কি দারুন দেখতে তে কলেজ পড়ুয়া চিটিংবাজ মাহী, অগ্নিতে জ্বলন্ত অগ্নি, দবির সাহেবের সংসারে কমিডিয়ান চুমকি, হানিমুনে ধনির টাকায় দুলালী, অনেক সাধের ময়নাতে গ্রাম্য সরল মেয়ে ময়না এবং দেশা-দ্যা লিডারে উপস্থাপিকা/সাংবাদিকতা। ক্যারিয়ারের ২০১৪ মাহিকে এনে দিয়েছে সর্বোচ্চ সফলতা।

মাহিয়া মাহি ২০১৬ সালের ২৪ মে মাহমুদ পারভেজ অপু’র সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন । মাহমুদ পারভেজ বাড়ী সিলেটে এবং তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ।বাংলা চলচ্চিত্রে যখন নায়িকা শূন্য হয়ে পড়ছিলো ঠিক সেই সময় মাহি সফল হয়েছিলেন। মাহির সাফল্যে পরিচালক থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র ব্যবসায়ীরাও আশায় বুক বেঁধে ছিলেন। মাহির পাশাপাশি সাম্প্রতিক সময়ে আরো বেশ কিছু নতুন মুখ নায়িকা হিসেবে এসেছেন। কিন্তু সাফল্যের শীর্ষে থাকা মাহির হঠাৎ এ প্রস্থানের পিছনে অন্য কোন কারণ আছে কিনা তা নিয়েও ভক্ত মহলে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন এবং সন্দেহ!

 

Tarokaloy/13 March/Shaila

Previous ArticleNext Article