সাজগোজ

ঠোঁটের যত্নে টিপস এন্ড ট্রিকস! ঠোঁটের কালচে ভাব দূরীকরণে!! 

ত্বকের যত্ন নিতে নিতে মানুষ ভুলেই যায় ঠোঁটের আশে পাশের কালচে দাগ গুলো মুখের সৌন্দর্য অনেকটা ম্লান করে দেয়। ঠোঁটের চর্চা করতে অনেকেই এড়িয়ে চলে কিন্তু ঠোঁটের সৌন্দর্য মানুষের আসল সুন্দর্য ফুটে ওঠে। অনেকেই গাঢ় অথবা ডার্ক সেড এর লিপস্টিক ব্যবহার করতে পছন্দ করেন না তারা হালকা লিপ বাম অথবা লিপ গ্লাস দিতে পছন্দ করেন। কিন্তু ঠোঁট কালচে ভাব হলে হয়তো শুধু লিপ বাম দিয়ে ঢেকে রাখা সম্ভব নয়। ঠোঁটের কালচে ভাবের জন্য মুলত আমরাই দায়ি। অযত্নে অবহেলা ও কম দামি লিপস্টিক ব্যবহারের ফলে ঠোঁটের রং রুপ বদলে যায়। আসুন জেনে নেই ঠোঁটের যত্নে কিছু টিপস এন্ড ট্রিকস যা ঠোঁটের সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলে। 
 
 


 
 
১. যাদের ঠোঁট ছোটবেলা থেকেই শীত গ্রীষ্ম সব ঋতুতে শুষ্ক থাকে তারা সর্বদা ঠোঁটে হালকা লিপ বাম বা চেপষ্টিক ব্যবহার করবেন। 
 
 

 
২. ঠোঁটে লিপ বাম ব্যবহারের আগে ঠোঁট স্ক্রাব করে নিবেন। সেক্ষেত্রে চিনি ও মধুর স্ক্রাবার ব্যবহার করতে পারেন। অথবা চিনি ও অলিভ অয়েলের স্ক্রাবার ব্যবহার করতে পারেন নিয়মিত। এতে আপনার ঠোঁটের মরা চামড়া গুলো পরিষ্কার হয়ে যাবে। 
 
 
 
৩. ঠোঁটে যত্ন নিতে ঘুমানোর আগে ঠোঁট ক্লিন করে অলিভ অয়েল অথবা ভেসলিন দিয়ে ঘুমাবেন। 
 
 
 
৪. দুধের সর পেস্ট করে মাঝে মাঝে ঠোঁটে লাগাবেন। টানা ৫-১০ মিনিট আস্তে আস্তে স্ক্রাব করবেন। নিয়মিত ব্যবহারে ঠোঁটের কালচে ভাব দূর হবে। 
 
 
 

৫. প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই ঠোঁটের মেকআপ অথবা লিপস্টিক তুলে ঘুমাতে যাবেন। ঘুমানোর আগে ঠোঁটে নিয়মিত ক্লিনজিং মিল্ক অথবা লিপ ক্রিম লাগিয়ে ঘুমাবেন। 
 
 
 
৬. ঠোঁটে টমেটো পেস্ট অথবা টমেটো রাব করতে পারেন এটি কালচে ভাব দূর করবে। 
 
 
 
 
৭. সকালে ঘুম থেকে উঠে ঠোঁটে মাঝে মাঝে ব্রাশে টুথপেস্ট লাগিয়ে হালকা ভাবে ২-৫ মিনিট রাব করবেন। এরপর লিপ বাম লাগিয়ে ফেলবেন। দেখবেন ঠোঁট কত সফট থাকে। 
 

 

 
৮. কোনো প্রোগ্রামে গেলে মেকআপ তো মেয়েদের জন্য খুবই জরুরী সেক্ষেত্রে মেকআপ এর আগে ঠোঁটের এক্সফোলিয়েট করে নিবেন। স্ক্রাব করে দেন লিপস্টিক লাগানোর আগে হালকা লিপ ক্রিম ব্যবহার করে নিবেন এরপর লিপস্টিক দিয়ে এর উপর হালকা পাউডার দিয়ে আলতো চেপে চেপে দিলে লিপস্টিক ঠোঁটে উপর অনেকক্ষণ টেকসই হবে। 
 
 
তারকালয়/০৪/০২/১৯/রুপা 

Previous ArticleNext Article