অপরাজিতা তুমি

রিট্রেনচমেন্ট কি এবং নিজেকে কিভাবে প্রিপেয়ার করবেন?

আজকাল কর্পোরেট ওয়ার্ল্ডে ডাউনসাইজিঙ কিংবা রাইটসাইজিঙ একটা কমন ব্যাপার। কোম্পানি নিজেদের লাভজনক করার জন্য অনেক ধরনের স্ট্র্যাটেজি নেয়। লোক কমানো অথবা সঠিক জায়গায় সঠিক মানুষটিকে বসানো একটা ট্রেন্ড এখন , এর ফাঁকে রিসোর্সের সঠিক সমন্বয় করাও এটার অংশ।

আপনি যদি এমন কোনো কোম্পানিতে কাজ করে থাকেন যেখানে বাতাসে গুঞ্জন ওঠে রিট্রেনচমেন্ট অথবা ডাউনসাইজিঙ এর, একদম ঘাবড়াবেন না, বরং বুঝে নিন আপনি নিজেকে কিভাবে প্রিপেয়ার করবেন এই পরিস্থিতির জন্য।

১. সুপারভাইসর এর সাথে আলাপ করুন –

এই ধরণের পরিস্থিতিতে প্রথম যে মানুষটির সাথে আপনি আলাপ করবেন তা হলো আপনার বস । খামোখা কলীগদের সাথে আলাপ করে গুজবকে উস্কে দেবেন না । আপনার বস জানবেন আসলে কি হতে যাচ্ছে এবং আপনার কাজটি কতটা নিরাপদ। তিনি আপনাকে সঠিক এডভাইস দিতে পারবেন।

২. কোম্পানয়ী ব্যালান্স শিট এবং বিসনেস সম্পর্কে জানুন –

অনেক সময় আমরা জানিনা  কোম্পানি কোন দিকে যাচ্ছে,  বিসনেস কেমন হচ্ছে , বড় কোনো  চেঞ্জ চোখে পড়ছে কিনা , ম্যানেজমেন্ট অথবা  বিসনেসর ধরনে কোনও চেঞ্জ আসছে কিনা।

৩. নিজের পারফরমেন্স ভালো রাখুন _

নিজের পারফরমেন্স যেকোনো অবস্থাতেই পড়তে দেয়া যাবেনা । যদি আপনি এভালুয়েটেড হন, জব বাঁচাতে আপনার পারফরমেন্স এক্সসেলেন্ট লেবেলের হতে হবে। গুজবে কান দিয়ে কাজে স্থবির হলে চলবে না ।

৪. আপনার কাজটিকে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলুন –

কাজের গুরুত্ব ভেদে কোম্পানি ডিসিশন নেয় । সুতরাং আপনার রোলেটি কোম্পানিতে কতোটা গুরুত্বপুর্ণ সেটি এভালুয়েট করুন । দরকার হলে নতুন কোনো স্কিলসেট আয়ত্ত করুন যা ফিউচার বিজনেসের জন্য প্রয়োজন।

৫. দল পাকাবেননা –

গুজবে কান দিয়ে দল পাকানো যাবে না । আপনাকে জানতে হবে কোম্পানি জেনে বুঝেই সিধ্যান্ত নেবে। সুতরাং নিজের অবস্থানকে পরিষ্কার রাখুন।

৬. ভবিষ্যতের জন্য তৈরী থাকুন –

যেকোনো পরিস্থিতির জন্য তৌরি রাখুন নিজেকে । সিভি আপডেট করুন এবং জব মার্কেটে নজর রাখুন। মনে রাখবেন এইটাই আপনার একমাত্র চাকুরী নয় , সামনে আরো ভালো কিছু থাকতে পারে।

Previous ArticleNext Article